সোমবার, ২৭ জুন ২০২২ , ১৩ আষাঢ় ১৪২৯

Ads

প্রকাশ :১৫ মে ২০২২ , ০২:১৯ PM

ঝিনাইদহে জনপ্রিয়তার শীর্ষে হিজল

single image

আগামী ১৫ জুন ঝিনাইদহ পৌরসভার নির্বাচনকে নিয়ে বিশেষ এক জড়িপে মেয়র পদপ্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয়তায় শীর্ষস্থান দখল করেছেন জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ুম শাহরিয়ার হিজল। এবার নগরীর ভোটারদের মধ্যে বিশেষস্থান দখল করেছেন নতুন ভোটাররা। ভোটের জয়-পরাজয়ে নতুন ভোটারদের থাকবে বিশাল ভূমিকা। নতুন এ ভোটাররা শতকরা ৯৯ ভাগ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তরুণদের ভোটের বেশির ভাগই পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর। নির্বাচনী এলাকায় খুজখবর নিয়ে এমনটিই জানা গেছে।

নির্বাচনের প্রচারণার অংশ হিসেবে ১৪ই মে ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র প্রার্থী জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ুম শাহরিয়ার হিজলকে নিয়ে আমজনতার তুমুল মহড়া শুরু হয়।

শনিবার দুপুর থেকে ঝিনাইদহ পৌরসভা জুড়ে শুরু হয়েছে মেয়র প্রার্থী হিজলের তুমুল মহড়া। নির্বাচনী মহড়ায় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী ঐতিহ্যবাহী জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ুম শাহরিয়ার হিজল।

ঝিনাইদহ পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ুম শাহরিয়ার হিজল অন্যতম। তাকে ঝিনাইদহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে গণসংযোগ করতে দেখা যাচ্ছে। কাইয়ুম শাহরিয়ার হিজলের প্রতি দল-মত-নির্বিশেষে অনেকেই উচ্ছাসিত ও আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

ঝিনাইদহের বিশিষ্ট শিল্পপতি নাসের শাহরিয়ার জাহিদী মহুল সাহেবের ছোট ভাই আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে নাগরিক ঐক্যের ব্যানারের মেয়র প্রার্থী কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহিদী হিজল।
মতবিনিময় কালে কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহিদী হিজল বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে মানুষের সেবা করে আসছি, পৌর মেয়র নির্বাচিত হলে এই সেবার হাত আরও প্রসারিত করবো।
আলাদা কল্যান ফান্ড তৈরি করে দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের জন্য কাজ করে যাব। এ সময় মহিলারা আগামী পৌর ভোটে হিজলের পাশে থাকার দৃঢ় আশ্বাস প্রদান করেন।

সময়ের সাথে পার্শ্ববর্তী জেলা কুষ্টিয়া ও যশোরের যেমন উন্নতি সাধিত হয়েছে ঝিনাইদহ সে তুলনায় অনেক টা পিছিয়ে। স্বাধীনতার আগে পরে বহু বড় বড় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও মন্ত্রী ঝিনাইদহের নেতৃত্ব দিয়েছেন ও দিচ্ছেন কিন্তু এ জেলার মানুষের আশা-আকাংখার প্রতিফলন হয়েছে খুব সামান্যই। আধুনিক ঝিনাইদহ বিনির্মাণে সঠিক নেতৃত্ব এখন সময়ের দাবি।

এক নজরে কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহিদী হিজল

সচেতন নাগরিকগণের জানার কথা ঝিনাইদহের নারিকেল বাড়ির জমিদার ছিলো কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী (হিজল) এর দাদা, একজন প্রবল প্রতাপশালী জমিদার, বংশপরম্পরা জমিদার। সেই নারিকেল বাড়ির জমিদারের ছেলে হলেন মরহুম ভাষাসৈনিক জাহিদ হোসেন মুসা মিয়া। যিনি বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনে শৈশবে ঝিনাইদহের হাল ধরেছিলেন, পরবর্তীতে পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠীর রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে ভাষা আন্দোলনের নেত্বৃত্ব দেন, যেকোনো অান্দোলনে ছিলেন অগ্রভাগে, বঙ্গবন্ধু ও মওলানা ভাসানীর ছিলেন প্রিয়জন। ১৯৬৭-৬৮ সালে ঝিনাইদহ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন, বহুবার এমপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করেন। সত্য কথা বলতে গেলে ঝিনাইদহের রাজনৈতিক প্রাণ পুরুষ ছিলেন জাহিদ হোসেন মুসা মিয়া। যার হাতে গড়া বহু নেতা কর্মীই এম পি, মন্ত্রী হয়েছেন, এখনো নেতৃত্ব দিচ্ছেন ঝিনাইদহ তে। জমিদার বাবার এক মাত্র সন্তান মুসা মিয়া, জনগণের ভাগ্যন্ন্যায়নে কাজ করেছেন সারাজীবন, জমিদার বাবার সব সম্পত্তি ই মানুষের কল্যাণে ব্যয় করেছেন। জীবন ছায়ান্হে প্রতিষ্ঠা করেছেন

জাহেদী ফাউন্ডেশনঃ

জাহেদী ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ গরিব দুঃখী মেহনতী মানুষ উপকৃত হচ্ছেন, এ ফাউন্ডেশনের থেকে শতশত কোটি টাকার সামগ্রী ও অবকাঠামো উন্নয়নে নির্মিত হয়েছে বা হচ্ছে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, ক্রিড়া, ধর্মীয় ও অন্যান্য মানব সেবার কাজে। স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নের জন্য রেডিয়েন্ট থেকে নির্মিত হতে যাচ্ছে ঝিনাইদহে বিশ্বমানের মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। ৮ সন্তানের জনক ছিলেন মুসা মিয়া, বড় ছেলে বাংলাদেশের ফার্মাসিষ্ট জগতের দিকপাল, রেডিয়েন্ট ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির চেয়ারম্যান নাসের শাহরিয়ার জাহেদী মহুল আর চতুর্থ সন্তান হলেন কাইয়ূম শাহরিয়ার জাহেদী হিজল। প্রাচুর্যতা, অর্থ, বৃত্ত, বৈভবের অভাব নাই এ পরিবারের, রাজনীতি থেকে নেওয়ার কিছু-ই নাই জনগণের সেবা দেওয়া ছাড়া। শুধু ঝিনাইদহের মানুষের জীবন মান উন্নয়নের লক্ষ্যে, আধুনিক ঝিনাইদহ গড়ার দায়বদ্ধতা থেকে মেয়র নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সৎ, যৌগ্য, মেধাবী, পরিশ্রমী, শতশত বছর ধরে জনগণের সেবক এমন পারিবারিক ঐতিহ্য সমৃদ্ধ অনুকরণীয় নেতৃত্ব খুঁজে পাওয়া সত্যি ই ঝিনাইদহ বাসির জন্য আল্লাহর রহমত।

বর্তমানে কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী (হিজল) বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন তারমধ্যে অন্যতম হলোঃ
সাধারণ সম্পাদক – ঝিনাইদহ ইটভাটা মালিক সমিতি, সাধারণ সম্পাদক – ঝিনাইদহ রাইফেল ক্লাব, সাধারণ সম্পাদ-ঝিনাইদহ কমিউনিটি পুলিশ, পরিচালক -ঝিনাইদহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, সাধারণ সম্পাদক – ঝিনাইদহ শুটিং ক্লাব, কাউন্সিলর- এফবিসিসিআই, কাউন্সিলর- বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন, অতিঃ সাধারণ সম্পাদক – ঝিনাইদহ জেলা ক্রিড়া সংস্থা, নির্বাহী সদস্য – জাহেদী ফাউন্ডেশন, সহ-সভাপতি – রাহুল স্মৃতি ক্রিকেট একাডেমি ঝিনাইদহ, সাধারণ সম্পাদক – মুসা মিয়া ডায়াবেটিস সেন্টার, নির্বাহী সদস্য – শামসুল হুদা ফুটবল একাডেমি যশোর, উপসম্পাদক-সাম্প্রতিক দেশকাল,
মুসা মিয়া বুদ্ধি প্রতিবন্ধি স্কুলসহ বিভিন্ন মাদ্রাসা, মসজিদ, ঈদগাহ, ধর্মীও প্রতিষ্ঠান, কলেজ সহ অসংখ্য প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হয়ে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। এর প্রতিটি জায়গাতেই তাক লাগানো উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে। হয়েছেন ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ করদাতা। তিনি বাংলাদেশ সরকারের একজন সম্মানিত সিআইপি। নেতৃত্বের গুনে অন্যন্য যাঁর হাত ধরে স্বাধীনতা পরবর্তী গত ৫০ বছরে যে উন্নয়ন ঝিনাইদহে হয়নি আগামী ৫ বছরে সে উন্নয়ন হবে ইনশাআল্লাহ কারণ পারিবারিক ভাবেই শতশত কোটি টাকা ব্যায় করে মানব সেবায় এ পরিবার তাই ১ টাকাও তছরুপ হবেনা এমনটা আশা করা যায়।

শতভাগ দুর্নীতি মুক্ত, উন্নত, পরিচ্ছন্ন, রোল মোডেল নগরী গড়ে তোলা হবে ঝিনাইদহ কে। পারিপার্শ্বিক জেলা থেকে পিছিয়ে থাকা ঝিনাইদহ কে নেওয়া হবে নতুন উচ্চতায়। ঝিনাইদহের মানুষের কাছে জাহেদী পরিবারের উপরে আস্থা বিশ্বাস প্রশ্নাতীত। এ পরিবারের একজনকে মেয়র হিসেবে পাবে এটা আল্লাহর আশীর্বাদ হিসেবেই মনে করে ঝিনাইদহের জনগণ। এমন ভালো মানুষদের রাজনীতি তে সুযোগ করে দিতে পারলে ঝিনাইদহ নগরী হবে আধুনিক বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ নগরী। আশা না বিশ্বাস করি ঝিনাইদহবাসী আগামী ১৫ জুন সে সুযোগ করে দিবে। সমসাময়িক সকল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী থেকে চুলচেরা বিচার বিশ্লেষণ করে হিজল ভাইকে-ই অধিক যৌগ্য মেয়র হিসেবে বেঁচে নিবে ঝিনাইদহের জনগন, এমনটাই প্রত্যাশা।

এই বিভাগের আরো খবর ::

নামাজের সময়সূচী

তারিখ ২৭ জুন ২০২২

  • ফজর

    ৫:১৭

  • যোহর

    ১২:১৩

  • আছর

    ৪:৪৫

  • মাগরিব

    ৫:৫২

  • এশা

    ৭:০৪

  • সূর্যোদয় : ৬:৩৪
  • সূর্যাস্ত : ৫:৫২
Image

অনলাইন জরিপ

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ‘লকডাউন’ নিয়ে আপনি কি মনে করছেন?